May 09, 2021

এইমাত্র পাওয়া সংবাদ

ডিবি পুলিশ ও গনমাধ্যমকে ভুল তথ্য দিয়ে সাংবাদিক আজিজকে মিথ্যা মামলায় হয়রানি !!

 

বিশেষ প্রতিনিধি ঃ জাতীয় দৈনিক আমার সংগ্রামের প্রধান সম্পাদক ও জাতীয় প্রেসক্লাব ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সদস্য এবং বাংলাদেশ তাঁতী লীগের ১ নং সদস্য জনাব মোঃ আজিজুল হক পাটোয়ারীকে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানীর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়েছে এলাকাবাসী।জানা যায় গত কয়েকদিন আগে সাংবাদিক জনাব মোঃ আজিজুল হক পাটোয়ারীকে প্রতারক বানিয়ে আইন শৃংখলা বাহিনী ডিবি পুলিশকে ভুল তথ্য দিয়ে গ্রেফতার করান। ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানী করে এখানে শেষ করেনি গনমাধ্যমকে ভুল তথ্য দিয়ে সংবাদ প্রচার করেন। কথিত মামলার বাদী ও মোঃ ইকবাল হোসেন গংয়ের এমন ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলা থেকে অবশেষে জামিনে মুক্তি পাওয়ার পর বের হয়ে আসে আসল তথ্য।খোঁজ নিয়ে জানা যায় খিলগাও থানার মামলা নং ৫৮ তারিখ ১৬/৩/২১ মামলার বাদী মনোয়ারা বেগম প্রতারনার বিষয় একটি মামলা দায়ের করেন ঠিক সেদিনই আইন শৃংখলা বাহিনী ডিবি পুলিশকে ভুল তথ্য প্রদান করে জনাব মোঃ আজিজুল হক পাটোয়ারীকে গ্রেফতার করান পরে বিভিন্ন গনমাধ্যমে ভুল তথ্য দিয়ে প্রতারক মামলাবাজ বলে সংবাদ প্রচার করে। এভাবে কথিত ব্যক্তিরা সাংবাদিক পরিবারের দীর্ঘ দিনের সম্মান নষ্ট করার পায়তারা করেন।এতে বিব্রত অবস্থায় পড়েন সাংবাদিক পরিবার যেখানে তাদের সামাজিক ও রাজনৈতিক ভাবে হেয় প্রতিপন্ন করাই ছিল মোঃ ইকবাল হোসেন গংয়ের মূল লক্ষ্য।মামলার বিবরনে জানা যায় বাদীর ২য় স্বামীর কাছ থেকে টাকা উদ্দারের জন্য বিবাদী জনাব মোঃ আজিজুল হক পাটোয়ারীকে ৫ লক্ষ্য টাকা দেন মনোয়ারা বেগম সহ তার স্বাক্ষী মোঃ ইকবাল হোসেন ও মোঃ ইমন হোসেন এবং মোঃ মনির হোসেন তবে এ ব্যপারে অনুসন্ধান করে জানা যায় কথিত মামলার বাদী মনোয়ারা বেগম আর সেই মামলার প্রধান স্বাক্ষী মোঃ ইকবাল হোসেনের একজন ভাড়াটিয়া যা বিজ্ঞ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সাহেবের আদালত ঢাকা পিটিশন মামলা ১০/২০১৮ সালের ১০৭/১১৭ সি ধারার এই মামলায় কথিত মোঃ ইকবাল হোসেন গংরা আদালতে মুচলেকা প্রদান করেন মোঃ ইকবাল হোসেন ও মোঃ মনির হোসেন অত্র মোকদ্দমার বাদীকে হেস্তন্যাস্ত করার জন্য ভাড়াটিয়া মনোয়ারা বেগমকে দিয়ে চাঁদপুরে একাধিক মিথ্যা মামলা দায়ের করে হয়রানী করছে ।ইহা ছাড়াও জনাব মোঃ আজিজুল হক পাটোয়ারী ও তার ছেলে মোঃ আবু ইউসুফ পাটোয়ারীকে হয়রানী করার জন্য একটি ডাকাতি ও ছিনতাই নাম দিয়ে মিথ্যা মামলা চাঁদপুর আদালতে দায়ের করেন যার মামলা নং ২১৭/১৮। জনাব মোঃ আজিজুল হক পাটোয়ারী একজন সাংবাদিক ও রাজনৈতিকবিদ এবং তার ছেলেকে মিথ্যা মামলায় জড়ানোর জন্য নানা রকম পরিকল্পনা করিয়া আসছে।ভাড়াটিয়া দিয়ে মিথ্যা মামলায় ফাঁসানোকারী মনোয়ারা বেগম নারী ও শিশু নির্যাতন ও মানব পাচার সহ অন্যন্যা মিথ্যা মামলায় জড়ানোর হুমকি দেয়।পুরো ঘটনাটি নিয়ে আদালতে মুচলেকা প্রদান করে মোঃ ইকবাল হোসেন গংরা যার আদেশনামা দেন বিজ্ঞ আদালত।অথচ এই এ সকল তথ্য গোঁপন করে পরিকল্পিত ভাবে ষড়যন্ত্র মূলক ভাবে খিলগাঁও থানায় মামলাটি করেন শুধু মাত্র হয়রানী এবং সম্মানহানির উদ্দেশ্যে।খোঁজ নিয়ে জানা যায় মামলার প্রধান স্বাক্ষী মোঃ ইকবাল হোসেনের সাথে পৃথক পৃথক মামলা মোকাদ্দমা জনাব মোঃ আজিজুল হক পাটোয়ারীর সাথে রয়েছে যার পূর্ব শত্রুতার কারনে মোঃ ইকবাল হোসেন তার ভাড়াটিয়া মনোয়ারা বেগমকে দিয়ে হয়রানী করেন যা ডিবি পুলিশ ও গনমাধ্যমকে ভুল তথ্য দিয়ে তাদের উদ্দেশ্যে হাসিল করতে জনাব মোঃ আজিজুল হক পাটোয়ারীর সম্মান হানি করেন। তবে আশ্চার্যজনক বিষয় আদালতের মুচলেকা ও অন্যন্যা মামলার পাশাপাশি মোঃ ইকবাল হোসেন এবং মনোয়ারা বেগম একটি মামলায় কারাদন্ড পান যে মামলা থেকে তারা তাদের সহযোগী সহ পলাতক রয়েছে।সেই মামলার তথ্য গোঁপন করে উল্টো তারা প্রতারনার অভিযোগ থেকে বাঁচতে মিথ্যা মামলা দায়ের করেন।সব শেষে জনাব মোঃ আজিজুল হক পাটোয়ারীর জামিনের দিন তা আদালতের নজরে দেন ভুক্তভুগীর পক্ষের আইনজিবীগন।অন্যদিকে মামলার এজাহার নামী আরেক স্বাক্ষী মোঃ ইমান হোসেনের বিরুদ্ধে আওয়ামিলীগের কর্মির পরিচয় সূচিপাড়া দক্ষিন ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের বরাদ্দ কৃত সোলার বিদ্যুৎ গরিব দুখিদের না দিয়ে দুর্নীতির মাধ্যমে বিক্রি করে টাকা আত্নসাৎ করে যার বিরুদ্ধে জনাব মোঃ আজিজুল হক পাটোয়ারী চেয়ারম্যান দুর্নীতি দমন কমিশনে অভিযোগ করেন। এছাড়া তার বিরুদ্ধে জনাব মোঃ আজিজুল হক পাটোয়ারী মামলা দায়ের করেন।মোঃ মনির হোসেন প্রতারানার মাধ্যমে সাধারন মানুষের কাছ থেকে অর্থ হাতিয়ে নেয় তার বিরুদ্ধে জনাব মোঃ আজিজুল হক পাটোয়ারী অনুসন্ধানী প্রতিবেদন তৈরী করতে গেলে তিনি নিজের কু-কর্ম আড়াল করতে মামলার এজাহার নামীয় স্বাক্ষী হিসাবে থাকেন।মিথ্যা ও ষড়যন্ত্রমূলক মামলার শিকার জনাব মোঃ আজিজুল হক পাটোয়ারীর ছেলে মোঃ আবু ইউসুফ পাটোয়ারী বলেন আমার বাবার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলার মূল পরিকল্পনাকারী হচ্ছে মোঃ ইকবাল হোসেন।তিনি ও তার সহযোগীরা” মোঃ আজিজুল হক পাটোয়ারী “নামে ভুয়া ফেসবুক আইডি খুলে প্রধানমন্ত্রীর সাথে আমার পিতার ছবি এডিট করে অপপ্রচার করেন।মূ্লত ওই আইডি আমার বাবার নয়।এ ছাড়া আমার পাসপোর্ট ফটোকপির মধ্যে ভুয়া সিল ব্যবহার করে বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ করে হয়রানি করেন। এ ধরনের অনেক ষড়যন্ত্র মূ্লক প্রচেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে তার ভাড়াটিয়া মনোয়ারা বেগমকে দিয়ে আমার বাবার নামে এই মিথ্যা মামলা করেন।যার কারনে আমাদের পরিবারের সম্মানহানিসহ বড় ধরনের ক্ষতির সম্মুখিন হয়েছি। আদালতের মুচলেকা তথ্য ও কারাদন্ডের বিষয় সহ বিভিন্ন মামলার তথ্য গোঁপন করে জনাব মোঃ আজিজুল হক পাটোয়ারীকে প্রতারক বানিয়ে গ্রেফতার করানোর বিষয় এবং গনমাধ্যমে মিথ্যা তথ্য দিয়ে সংবাদ প্রচারের বিরুদ্ধে এলাকাবাসী প্রতিবাদ জানিয়েছেন।মোঃ জামাল নামে এলাকার এক ব্যবসায়ি বলেন ঘটনাটি সম্পূর্ণ মিথ্যা বানোয়াট আমরা এর তীব্র প্রতিবাদ জানাই।এ ভাবে কামাল ও নিজাম সহ অনেকে প্রতিবাদ জানান।তবে জনাব মোঃ আজিজুল হক পাটোয়ারীর পক্ষে আইনজীবি জনাব মোঃ হারুন অর রশিদ বলেন প্রতারার দায়ে কথিত মামলার বাদী মনোয়ারা বেগম এবং মামলার প্রধান স্বাক্ষী মোঃ ইকবাল হোসেন সহ মোট ৩ জনকে প্রত্যেকে ১ বৎসর করে কারাদন্ড দেওয়া হয়েছিল অথচ তারা নিজেদের সাজার বিষয় গোঁপন করে বাঁচার জন্য পরিকল্পিত ভাবে মিথ্যা মামলা দায়ের করেন যা খুবই দুঃখজনক আমরা সাজাপ্রাপ্ত আসামিদের দ্রুত গ্রেফতার দাবী করছি।শুধু তিনি নয় এলাকার সচেতন মহল কথিত প্রতারক মোঃ ইকবাল হোসেন ও মনোয়ারা বেগম সহ কারাদন্ডে দন্ডিত পলাতক সাজাপ্রাপ্ত আসামিদের গ্রেফতারের জন্য পুলিশ প্রশাসনের আসন্ন হস্তক্ষেপ কামনা করেন।021-1908161409

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *