August 20, 2018

এইমাত্র পাওয়া সংবাদ

“ঠাকুরবাজার-সোনাপুর-নাওড়া-ফতেপুর গ্যাস লাইন নির্মাণ ও সংযোগ প্রকল্প”টি অপেক্ষায় থাকায় অগ্রাধিকারভিত্তিতে জনস্বার্থে দ্রুত বাস্তবায়নের দাবী

Untitled-2 copy

সংবাদদাতাঃ চাঁদপুর জেলার শাহরাস্তি উপজেলার পৌরসভা ও পার্শ্ববর্তী এলাকা “ঠাকুরবাজার-সোনাপুর-নাওড়া-ফতেপুর গ্যাস লাইন নির্মাণ ও সংযোগ প্রকল্প”টি অপেক্ষায় থাকায় অগ্রাধিকারভিত্তিতে জনস্বার্থে  দ্রুত বাস্তবায়নের জন্য গণদাবীতে পরিণত হয়েছে। অত্র এলাকায় গ্যাস লাইন নির্মান ও সংযোগ প্রদানের জন্য জনগণের দাবীর প্রেক্ষিতে মাননীয় সংসদ সদস্য প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, সে লক্ষ্যে লাইনটি বাস্তবায়নের জন্য তিনি চেষ্ট করেছেন এবং আবেদনকারী প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছেন। পেট্রোবাংলা, কাওরানবাজার, ঢাকা এর প্ল্যানিং এন্ড মার্কেটিং বিভাগের বছরের পর বছর পড়ে থাকা গ্যাস সম্প্রসারন পাইপ লাইন নির্মান ও সংযোগ প্রদানের জন্য চুড়ান্ত পর্যায়ের ফাইলটি সরকারের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে জনস্বার্থে দ্রুত বাস্তবায়ন করা এখন সময়ের জোরালো গণদাবীতে পরিনত হয়েছে। জানা যায়, গ্যাস সম্প্রসারন পাইপ লাইন নির্মান ও সংযোগ প্রদানের জন্য অনেক ফাইল পেট্রোবাংলার প্ল্যানিং এন্ড মার্কেটিং বিভাগে জমা হয়ে পড়ে আছে বছরের পর বছর ধরে সরকারের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায়। আর এ ফাইলগুলি চেষ্ঠা ও তদবীর করে এ পর্যন্ত নিয়ে আসার পিছনে যারা অক্লান্ত শ্রম ও তদবীর করেছেন, তারা গ্যাস সম্প্রসারন পাইপ লাইন নির্মান ও সংযোগ প্রদানের আশায় পেট্রোবাংলায় প্রতিনিয়ত এসে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। কখন সরকার এই ফাইলগুলি বাস্তবায়নের জন্য অনুমতি দিবে ? সূত্রে জানা যায়, তারা ২০০৮ সালে মহান স্বাধীনতার মহানায়ক, বাংলাদেশের স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর কন্যা, বঙ্গ কন্যা, দেশ রতœ, জননেত্রী, ডিজিটাল বাংলাদেশের রুপকার ও বর্তমান মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সরকার ভিশন ২১ ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয় নিয়ে সরকার গঠন করার পর থেকে চেষ্টা ও তদবীর করে এ পর্যন্ত নিয়ে আসেন। তারা পেট্রোবাংলা, কাওরানবাজার, ঢাকা এর প্ল্যানিং এন্ড মার্কেটিং বিভাগে যোগযোগ করলে  সংশ্লিষ্ট দপ্তর থেকে জানায় সরকারের গ্যাস সম্প্রসারন কাজ বন্ধ রেখেছেন, যখন সরকার অনুমতি দিবে তখন প্রকল্পগুলির বাস্তবায়ন কাজ শুরু হবে। পড়ে থাকা সেই ফাইলগুলি প্রকল্পগুলির র মধ্যে কুমিল্লা বাখরাবাদ গ্যাস ডিষ্ট্রিবিউশন কোম্পানী লিমিটেড এর প্রেরিত চাঁদপুর জেলার শাহরাস্তি উপজেলার একটি জনগুরুত্বপূর্ন ও প্রতিশ্রুতমূলক ফাইলও রয়েছে, যার উপর জ্বালানী মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনাও রয়েছে। ২০০৭ সাল থেকে শুরু করে ও যার প্রচেষ্টা ডিজিটাল সরকারে প্রথম থেকে জোরালো ভাবে চালিয়ে যাচ্ছে। আরও জানা যায় পে্েট্রবাংলায় পড়ে থাকা এই ফাইলগুলিতে মন্ত্রী বা এমপির ডিও লেটার ও নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি রয়েছে। এমনকি গ্যাস সম্প্রসারন কাজ বন্ধ হওয়ার আগে ২০১০ সালে সরকারের শুরু থেকে গ্যাস সম্প্রসারন পাইপ লাইন নির্মান ও সংযোগ প্রদান এবং শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত জ্বালানী ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের চিঠিও রয়েছে এবং তারা জ্বালানী ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ে আবেদন করে অডারের চিঠি ইস্যু হয়েছে, তাতেও বাস্তবায়ন হচ্ছে না এবং প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়েও আবেদন নিবেদন করে চেষ্টা চালাচ্ছেন। বর্তমান জনবান্ধব ও গণমূখী সরকার এ দিকে সুদৃষ্টি দিয়ে দ্রুত পেট্রোবাংলা, কাওরানবাজার, ঢাকা এর প্ল্যানিং এন্ড মার্কেটিং বিভাগের পড়ে থাকা গ্যাস সম্প্রসারন পাইপ লাইন নির্মান ও সংযোগ প্রকল্পগুলির প্রদানের জন্য চুড়ান্ত পর্যায়ের ফাইলগুলি সরকারের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে জনস্বার্থে দ্রুত বাস্তবায়ন করার জন্য তারা সরকারে কাছে বার বার দাবী জানিয়ে আসছে। পেট্রোবাংলায় পড়ে থাকা গ্যাস সম্প্রসারন লাইনের জন্য ফাইলগুলি সরকার দ্রুত অনুমতি দিয়ে অন্তত লাইন নির্মান করে কাজ এগিয়ে নেওয়া, এখন তাদের একটাই দাবী, কখন সরকার তা বাস্তবায়ন করবে। আর দাবী চুড়ান্ত পর্যায়ের ফাইলগুলি জনস্বার্থে বাস্তবায়ন করবে বলে তাদের বিশ্বাস বুকে নিয়ে লালন করে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। তাদের কথা হলো, আমরা বৈধ ভাবে চেষ্টা ও তদবির করে এই পর্যন্ত নিয়ে আসলাম আমাদের কাজ হচ্ছে না, অথচ অবৈধভাবে গ্যাস সম্প্রসারন লাইন নির্মান ও সংযোগ হচ্ছে হরহামেশায়। কেউ কেউ বলছে গ্যাস অপচয় হয় বিধায় গ্যাস লাইন বন্ধ করে দিয়ে সিলিন্ডার সিস্টেম চালু করা উচিত। তাদের কথা হলো আমরা এ পর্যন্ত নিয়ে আসতে আমাদের সময়, শ্রম ও অর্থ খরচ হয়েছে, আমাদেরগুলি বাস্তবায়ন করে সরকার যা করার তা করুক। সেই সাথে সরকার গ্যাস সংরক্ষনের ব্যবস্থার মাধ্যমে গ্যাসের অপচয় রোধ কল্পে সারা দেশে সরকার বিদ্যুতের মত ডিজিটাল মিটার সিষ্টেম দ্রুত চালু করা জরুরী। এতে করে গ্যাসের অপচর ও সিস্টেম লস পুরোপুরি কমে যাবে। গত ১৮ ডিসেম্বর ২০১৫ইং তারিখে দৈনিক জনতা পত্রিকা সহ কয়েক পত্রিকায় প্রকাশিত হয় জ্বালানী মন্ত্রণালয় গ্যাসের গ্রাহকদের জন্য মিটার সিস্টেম বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে এবং পাশাপাশি অগ্রাধিকার ভিত্তিতে গ্যাস সংযোগ দেওয়ার জন্য নীতিমালা ও দিকনির্দেশনার কাজ চলছে। বঞ্চিত ও ভূক্তভোগীরা পত্রিকার মাধ্যমে সরকারের জ্বালানী মন্ত্রণালয় দেরিতে হলেও যে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন সেই সিদ্ধান্তের প্রতি অভিনন্দন জানিয়েছিলেন। পরিশেষে ভূক্তভোগীরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও জ্বালানী মন্ত্রীর কাছে তাদের সকলের একটাই দাবী আগে পেট্রোবাংলা, কাওরানবাজার, ঢাকা এর প্ল্যানিং এন্ড মার্কেটিং বিভাগের বছরের পর বছর পড়ে থাকা গ্যাস সম্প্রসারন পাইপ লাইন নির্মান ও সংযোগ প্রদানের জন্য চুড়ান্ত পর্যায়ের প্রকল্পগুলি সরকারের চলতি মেয়াদেই অগ্রাধিকার ভিত্তিতে স্থানীয় সংসদ সদস্যদের প্রতিশ্রুতি রক্ষাকল্পে ও জনস্বার্থে দ্রুত বাস্তবায়নের দাবী জানান।

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *