September 20, 2018

এইমাত্র পাওয়া সংবাদ

জাতির কাছে নিলাম হয়ে গেলাম: এমএ লতিফ

.

বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি বিকৃত করার ঘটনায় জড়িতদের চিহ্নিত করলেন এম এ লতিফ, এমপি। এ ঘটনার নেপথ্য কাহিনী তুলে ধরার জন্য জড়িত দু’জনকে উপস্থিত করে রবিবার সংবাদ সম্মেলন করেছেন আওয়ামী লীগ দলীয় এই সংসদ সদস্য। একই সাথে শনিবারের সংবাদ সম্মেলনে দলের একটি অংশকে দোষারোপ করে ‘একটি মহলের ষড়যন্ত্র’ বলে দেওয়া বক্তব্যও প্রত্যাহার করে নিয়েছেন লতিফ।

রবিবার দুপুরে ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের বঙ্গবন্ধু হলে প্রতিকৃতি বিকৃতির ঘটনায় জড়িতদের চিহ্নিত করা হয়েছে মর্মে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে আগের বক্তব্য প্রত্যাহার করে নেন তিনি।

বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি বিকৃতির ঘটনায় নিজের অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে উল্লেখ করে সংসদ সদস্য এমএ লতিফ বলেন, সব সফলতার মধ্যে ব্যর্থতাও থাকে। আমি ফেরেশতাও না, শয়তানও না। এ ঘটনায় জাতির কাছে একেবারে নিলাম হয়ে গেলাম। এমএ লতিফ বলেন, যারা বঙ্গবন্ধুর ছবি বিকৃতির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট তাদের আমি চিহ্নিত করেছি। তাদের আপনাদের সামনে নিয়ে আসলাম।

এদিকে ফেস্টুনে পরিচ্ছন্নভাবে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে উপস্থাপন করতে গিয়েই প্রতিকৃতি বিকৃতির ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছেন নগরীর আন্দরকিল্লার হায়দার প্রিন্টার্সের প্রধান গ্রাফিক্স ডিজাইনার কবির হোসেন বাবু। বাবু বলেন, ”প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার চট্টগ্রাম আগমনকে ঘিরে ব্যানারগুলো তৈরির সময় ছিল খুবই অল্প। এমপি মহোদয়ও খুব ব্যস্ত ছিলেন। দায়িত্বগুলো ছিল আমাদের ঘাড়ে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের পরিপূর্ণ আকৃতির প্রতিকৃতি তৈরির দায়িত্বও ছিল। কিন্তু ছবি জোগাড় করতে গিয়েই ঝামেলাটা হয়েছে। এখানে অন্য কোনো উদ্দেশ্য ছিল না। ১০ ফুটের পরিপূর্ণ ব্যানার তৈরিতে যে ছবিটা দিতে হয়, আসলে আমরা সেরকম ছবি পাইনি। বঙ্গবন্ধুর যে পরিপূর্ণ ছবি পেয়েছিলাম তা বড় করতে গেলে ফেটে যাচ্ছিল। চেম্বারের কর্মকর্তা রাসেল দাসের কাছ থেকে এমএ লতিফের মুজিব কোর্ট পরা ছবিটা নিয়েছিলাম। এটা নিয়ে এত কিছু হবে জানলে আমি তা করতাম না। আমার উদ্দেশ্যটা অসৎ ছিল না। খুব দ্রুত করতে গিয়ে আমি কাজটি করে ফেলেছি।

হায়দার প্রিন্টার্সের মালিক হায়দার আলী সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘আমার প্রতিষ্ঠানের সব ডিজাইনের কাজ করেন কবির হোসেন। সময় স্বল্পতার কারণে ও এতো বড় ভুলটা করে ফেলেছে।”

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *