June 24, 2018

এইমাত্র পাওয়া সংবাদ

সরকারী চাকুরীতে প্রবেশের সময়সীমা বিশ্বের অন্যান্য দেশের ন্যায় বৃদ্ধি করা ও আবেদন ফ্রি বাতিল করার দাবী

index
সরকারী চাকুরীতে প্রবেশের সময়সীমা বিশ্বের অন্যান্য দেশের ন্যায় বৃদ্ধি করার দাবী জরুরী হয়েছে পড়ছে। এদেশে পড়ালেখা করে সেশন জটের পড়ে সর্বোচ্চ ডিগ্রী অর্জন করতে করতে সরকারী চাকুরীতে প্রবেশের সময়সীমা শেষ হয়ে যায়। যে হারে সরকারী চাকুরীতে অবসরের মেয়াদ বাড়ানো হচ্ছে, সেভাবে কিন্ত সরকারী চাকুরীতে প্রবেশের সময়সীমা একবারও বাড়ানো হয়নি। পড়ালেখা শেষে করে আবেদন করতে করতে সময় শেষ হয়ে যায়, তারমধ্যে যে পরিমাণ চাকুরীর আবেদন ফি তা বেকার শিক্ষিত যুবক, যুবতী ও অভিভাবকদের দ্বারা বহন করা সম্ভব হচ্ছেনা। এ যেন এক মরার উপর খরার গাঁ। এব্যাপারে বর্তমান জনবন্ধব, ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার কারীগর বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ সরকার বেকার শিক্ষিত যুবক, যুবতী ও অভিভাবকদের দাবী বিবেচনা পূর্বক সরকারী চাকুরীতে প্রবেশের সময়সীমা বিশ্বের অন্যান্য দেশের ন্যায় বৃদ্ধি করা ও আবেদন ফ্রি বাতিল করা জরুরী প্রয়োজন। বাংলাদেশে বর্তমান প্রেক্ষাপটে সরকারী চাকুরীতে প্রবেশের সময়সীমা নুন্যতম ৪০/৪৫ করা জরুরী দরকার।

বিভিন্ন সূত্রে জানা যায়, ভারতের পশ্চিমবঙ্গে সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়স ৪০, বিভিন্ন প্রদেশে বয়সসীমা ৩৮ থেকে ৪০, শ্রীলংকায় ৪৫, ইন্দোনেশিয়ায় ৩৫, ইতালিতে ৩৫ বছর কোনো কোনো ক্ষেত্রে ৩৮, ফ্রান্সে ৪০, ফিলিপাইন, তুরস্ক ও সুইডেনে যথাক্রমে সর্বনিম্ন ১৮, ১৮ ও ১৬ এবং সর্বোচ্চ অবসরের আগের দিন পর্যন্ত। আফ্রিকায় চাকরি প্রার্থীদের বয়স বাংলাদেশের সরকারি চাকরির মতো সীমাবদ্ধ নেই। অর্থাৎ চাকরি প্রার্থীদের বয়স ২১ হলে এবং প্রয়োজনীয় শিক্ষাগত যোগ্যতা থাকলে যেকোনো বয়সে আবেদন করা যায়।

রাশিয়া, হংকং, দক্ষিণ কোরিয়া, যুক্তরাজ্যে যোগ্যতা থাকলে অবসরের আগের দিনও যে কেউ সরকারি চাকরিতে প্রবেশ করতে পারেন। যুক্তরাষ্ট্রে ফেডারেল গভর্নমেন্ট ও স্টেট গভর্নমেন্ট উভয় ক্ষেত্রে চাকরিতে প্রবেশের বয়স কমপক্ষে ২০ বছর এবং সর্বোচ্চ ৫৯ বছর। কানাডার ফেডারেল পাবলিক সার্ভিসের ক্ষেত্রে কমপক্ষে ২০ বছর হতে হবে, তবে ৬৫ বছরের উর্ধে নয় এবং সিভিল সার্ভিসে সর্বনিম্ন ২০ বছর এবং সর্বোচ্চ ৬০ বছর পর্যন্ত সরকারি চাকরিতে আবেদন করা যায়।

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *