November 18, 2019

এইমাত্র পাওয়া সংবাদ

পাকিস্তান সৃষ্টি কি ভুল ?

images
আমি বাংলাদেশের খাঁটি বাঙ্গাঁলী, স্বাচ্ছা মুসলমান। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি, ঐক্য-সংহতিতে সকল ধর্মের বসবাসের পুন্যভূমি আমার প্রিয় মাতৃভূমি বাংলাদেশ। প্রাদেশিক রাজধানী ঢাকায় মেনে নিতে পারেনি তাই বঙ্গঁভঙ্গ রোধে ১৯১১ সালে বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথের নেতৃত্ব দান, এটাও কি আমার অহংকার? ১৯৪০ সালে বৃটিশ শাসিত অখন্ড ভারতে বাংলা, ভারত, পাকিস্তান ত্রিখন্ডে ভাগ, শেরে বাংলার প্রস্তাব মেনেছিলেন জিন্নাহ, মানেন নি মহাত্মা গান্ধী, নেহেরু, এটা কার অপরাধ? ইতিহাস কথা বলে নিন্দুকের অপবাদ। কংগ্রেস নেতৃত্বের ব্যর্থতায় ১৯০৬ সালে ঢাকায় সূত্রপাত ঘটায় শুধু মুসলিম নয়, সকল সম্প্রদায়ের আজাদী অর্জনে নবাব স্যার সলিমুল্লাহর আহ্বানে মুসলিম লীগ গঠিত হয়। ব্রাহ্মণ-কুলীন, অচ্ছুৎ-তফশীলী সম্প্রদায় ও মুসলমানদের জাগরণ ঠেকাতে বৃহৎ বাংলার স্বাধীনতায় সকল বাংলা ভাষাভাষী ঐক্যবদ্ধ না হওয়ায়, বাধ্য হয়ে পূর্ব বাংলাকে পাকিস্তানের অন্তর্ভুক্ত হতে হয়। ভারতভুক্ত হল যারা, তারা আজও পেল না স্বাধীনতা এটাই সত্য কথা। দূরদর্শী পূর্ব বাংলার মুসলিম নেতৃত্ব, স্বাধীন বাংলার স্বপ্ন মাথায় নিয়েই হয়ত পাকিস্তানভুক্ত হয়। পাকিস্তানভুক্ত হয় বিধায় ৭১ এর মুক্তি সংগ্রামে মহান মুক্তিযুদ্ধে বাংলাদেশের অভ্যুদয় হয়। ভারত বিভক্তি ভাবা যেমন বোকার স্বর্গে বাস করা, তেমনি পাকিস্তান সৃষ্টিকে ভুল বলা বা অস্বীকার করলে ভারতভুক্তকে মেনে নেয়া হয় কি-না? ইতিহাস কথা কয়, পাকিস্তান না হলে বাংলাদেশ হত না নিশ্চয়। মুসলিম শাসন থেকে ইংরেজ দখল, ১৯০ বৎসর বৃটিশ শাসন। অখন্ড ভারত থেকে পাকিস্তান হয়ে স্বাধীন আমার প্রিয় জন্মভূমি বাংলাদেশ এ কথা অনস্বীকার্য।
৫২ থেকে ৭১ আংশিক ইতিহাস প্রকাশ এটা বাঙ্গালী জাতির হাজার বছরের ইতিহাসের পূর্ণতা নয়। অতীত ইতিহাস-ঐতিহ্যই ভবিষ্যত পথ রচনা করে। ইতিহাস ভুললে কি হয় ইরাক, সিরিয়া, লিবিয়া’র চেহারা আমরা দেখতে পাই। অতীত ইতিহাস থেকে শিক্ষা-দীক্ষা নিয়ে স্বাধীন-সার্বভৌম বাংলাদেশকে এগিয়ে যেতে হবে। ৭১ এর গণঘাতকদের আন্তর্জাতিক মানের বিচার আমরা চাই, কিন্তু সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদন্ড চাই না। হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গাঁলী, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বাংলাদেশে ইতিহাসের পূর্ণতা হবে, মুসলিম শাসন থেকে বৃটিশ শাসন ও পাকিস্তানের নাকপাশ ছিন্ন করার সঠিক সত্য প্রকাশের মাধ্যমে। শাসক গোষ্ঠীর শোষণের জন্য পাকিস্তানের প্রতিষ্ঠাতা সকলকে দোষী সাব্যস্ত করা যায় কি? বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ছিলেন পাকিস্তান আন্দোলনে মুসলিম লীগের এক সক্রিয় কর্মী ও নেতা। সংবিধানে আজও উল্লেখ আছে পূর্ব-পাকিস্তানের সীমান্তই বাংলাদেশের সীমান্ত। বাংলাভাষী অন্যরা ভারতের নাগরিক হয়ে এবং তাদের রাজনীতিবিদরা ভারতের অন্তর্ভুক্ত প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী হলে নিজেদের ধন্য মনে করেন আর আমরা “পিন্ডির জিঞ্জির ভেঙ্গেছি, দিল্লীর দাসত্ব মানি না” মানব না। মানলে আমাদের স্বত্ত্বা ও স্বকীয়তার অবস্থা কি হয়? আমাদের অতীত হাজার বছরের ইতিহাস ও ঐতিহ্য, সংস্কৃতি-কৃষ্টি-কালচার সর্ব স্তরে বিস্তার ঘটাতে পারলেই স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব নিষ্কন্টক হবে। পাকিস্তান সৃষ্টিকে যারা ভুল বলে, তারাই ভারতের প্রকৃত দালাল এবং বাংলাদেশকে ভারতের অন্তর্ভুক্ত করার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত, কিন্তু ১৮৫৭ সালে সিপাহী বিপ্লবের নায়ক সুবেদার রজব আলী থেকে শুরু করে ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধে অর্জিত বাংলাদেশ কখনো দিল্লীর দাসত্ব মেনে নেবে না ॥

লেখক- মরহুম সরদার শাহাদাৎ হোসেন

সংগ্রহে- মোঃ ইসমাইল হোসেন মানিক পাটওয়ারী।

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *