June 19, 2018

এইমাত্র পাওয়া সংবাদ

চাঁদপুরের কচুয়ায় পালাখালে জোরপূর্বক ভাবে বাড়ির জমি দখল ॥ ধান ক্ষেত কেটে নেয়ার অভিযোগ।

জেলা প্রতিনিধি ॥
কচুয়ার পালাখালে জোরপূর্বক ভাবে জমি দখল ও ধান ক্ষেত কেটে নেযার অভিযোগ উঠেছে। প্রতিপক্ষ হান্নান গংরা তাদের নিজের জমি বলে দাবি করছেন। বাদী পক্ষের লোকজন শাহজাহান চাঁদপুর বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালত(সিআরপিসি কোর্ট) মামলা দায়ের করেন। মামলার রায় শুনানি শেষ না হওয়া পর্যন্ত নিজের জমি দাবি করে বাড়ির নির্মানের পায়তারা করছে। এতে বাদী পক্ষের লোকজন বাধা প্রদান করিলে তা কোনো ধরনের কর্ণপাত করেননি বরং মারধরের হুমকি দেয়।
এামলা এজহার সূত্রে জানা যায়- উপজেলার পালাখাল গ্রামের দক্ষিন পাড়া সাবেক ২৯ হাল ২৯নং পালাখাল মৌজার সিএস ৩৩,এসএ ৪৯,বিএস ১২৪১ নং খতিয়ানে অন্তর্ভূক্ত সাবেক ১১০৬ হালে নাল ৩০৯০ দাগে বাড়ী মোট .১৫ একর ভূমি শাহজাহান দাবী প্রার্থী করলে তার চৌহদ্দিতে কোনো সম্পত্তি ভোগদখলে নেই। অথচ ১৫ বছর যাবৎ প্রতিপক্ষগন হানśান মিয়া,জসিম উদ্দিন,মন্টু মিয়া,ছফি উল্যাহ,আশিক মিয়া,কামাল হোসেন,নজরুল ইসলাম, শাকিল হোসেন,আনোয়ার হোসেন ও গোলাম রাবিź ভোগ দখল করে আসছে।
বাদী পক্ষের লোজকন জানান- প্রায় ১৫ বছর ধরে আমাদের সম্পত্তি ভোগ দখল করে আসছে। এ ব্যাপারে কয়েক দফা সালিশী হয়। সালিশী ˆবঠকে সম্পূর্ন ভাবে শাহজাহান সম্পত্তি পায় বলে রায় দেন সালিশী ˆবঠকগণ। ˆবঠক অমান্য করে তারা বাড়ি নির্মানের বিভিনś প্রচেষ্টা করে। অথচ এই সম্পত্তি মালিক শাহজাহান।
এব্যাপারে চাঁদপুর বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালত(সিআরপিসি কোর্ট) মামলা দায়ের করা হয়। বিজ্ঞ আদালত বাড়ির নির্মানের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে। নিষেধাজ্ঞ অমান্য করে ইট,বালু ও রড সিমেন্ট আনায়ন করে বাড়ি নির্মান করের প্রচেষ্টা করে। আইনকে অমান্য করে বাড়ি নির্মান করার অপপ্রচেষ্টা চালাচ্ছে।
ক্ষমতার প্রভাবশালী হওয়া আইনকে অমান্য করে ঘর নির্মানের পাঁয়তারা করছে।
বাদী পক্ষের আব্দুল্লাল আল মামুন বলেন, এব্যাপারে কয়েক দফা সালিশী বৈঠক হওয়ার পর সালিশী যে রায় প্রদান করেছেন তা আমি মেনেছি। আমাদেরকে সম্পত্তি সম্পূর্ন রƒপে বুঝিয়া দেবার কথা থাকলে তা দেয়নি। বরং আজ না কাল এবভাবে আমাদেরকে হয়রানি করেছে। সালিশী ˆবঠকগণের কথা অমান্য করেছে। ওই সময় ইউপি সদস্য আব্দুল খালেক,আব্দুল রব,আবু তাহের , খলিলুর রহমান সহ সম্পত্তি বুঝিয়া দেবার এ রায় প্রদান করা সত্বেও তা দেয়নি। আমি আমাদের সম্পত্তি সম্পূর্ন ভাবে বুঝিয়া পেতে চাই। তাই আমি আইনের সহযোগিতা কামনা করছি। প্রতিপক্ষ হান্নানানের ১৮ শতাংশ ক্ষেতের ধান কেটে নিয়ে যায়। এ ব্যাপারে কচুয়া থানার এএসআই মোঃ আনোয়ার হোসেন বলেন, বাদীগণ সম্পত্তি বুঝে পেতে চাঁদপুর বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালত(সিআরপিসি কোর্ট-১) মামলা দায়ের করেন। যেহেতু এই সম্পত্তির উপর নিষাধাজ্ঞ রয়েছে তাদের বাড়ি নির্মানের জন্য আমি নিষেধ করি। কিন্তু অমান্য করে প্রতিপক্ষ হান্নান গংরা বাড়ী নির্মানের সকল উপকরন নিয়ে আসে। তারা আইনকে অমান্য করছে। বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালত(সিআরপিসি কোর্ট) যে নির্দেশ দিবেন তা অনুযাীয় পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহন করা হবে।22.11.17

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *