December 16, 2018

এইমাত্র পাওয়া সংবাদ

পানি স্বল্পতার প্রাথমিক চিকিৎসা।

5b24f5afdffc5967c096dde0662fec61-570cc45e1abf4আমাদের দেশে একজন মানুষ গড়ে প্রতিদিন ২.৫ থেকে ৩ লিটার পানি পান করে।  এর মধ্যে ১.৫ লিটার পানি প্রস্রাবের মাধ্যমে এবং ১.৫ লিটার পানি ঘাম, মল ও নিশ্বাসের মাধ্যমে নির্গত হয়। শরীরের পানি স্বাভাবিকের চেয়ে কমে গিয়ে যে অবস্থার সৃষ্টি হয় তাকে পানি স্বল্পতা বলে।

পানি স্বল্পতার কারণ

  • শরীর থেকে প্রচুর ঘাম নির্গত হওয়া
  • গরমের দিনে বেশি পরিশ্রম করা
  • জ্বর
  • ডায়রিয়া
  • অত্যধিক বমি হওয়া
  • প্রচুর রক্তপাত হওয়া

পানি স্বল্পতার লক্ষণ

  • মাথা ধরা
  • ঠোঁট শুঁকিয়ে যাওয়া
  • প্রস্রাব হলুদ হয়ে যাওয়া
  • পানি স্বল্পতার মাত্রা অনেক বেড়ে রোগীর চোখ কোঠরে ঢুকে যায়
  • চোখ মুখ শুঁকিয়ে যাওয়া
  • ৬ মাসের কম বাচ্চাদের মাথার চাঁদি বসে যাওয়া

প্রাথমিক চিকিৎসা

আক্রান্ত ব্যক্তিকে বারবার পানি খাওয়াতে হবে। যেহেতু শরীর থেকে পানির সাথে কিছু লবণও বেড়িয়ে যায় তাই পানি স্বল্পতার ব্যক্তিকে খাবার স্যলাইন খাওয়াতে হবে। কোন কোন সময় রোগীর মাংসপেশিতে টান ধরতে পারে বা ব্যথা হতে পারে। শরীরের লবণ কমে যাওয়ার কারণে এমনটা হয়। এরকম হলে ঘাবড়ে না গিয়ে রোগীকে বারবার খাবার স্যলাইন ও পানি খেতে দিতে হবে।

সতর্কতা

বাচ্চাদের ক্ষেত্রে পানি স্বল্পতার মাত্রা বেশি হলে তাকে দ্রুত হাসপাতালে নিতে হবে। আক্রান্ত ব্যক্তিকে অতিরিক্ত স্যালাইন খাওয়ানোও ক্ষতিকর।

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *