September 22, 2018

এইমাত্র পাওয়া সংবাদ

সারা দেশে উদযাপন হচ্ছে খুশির ঈদ

520485d5c0ac1-Eid-pic-20170626073616মাসব্যাপী সিয়াম সাধনা শেষে যথাযথ ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য ও ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্যদিয়ে সারা দেশে মুসলমানরা তাদের বৃহত্তম ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর উদযাপন  হচ্ছে খুশির ঈদ।

ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা পবিত্র রমজানের পুরো মাস রোজা পালনের পর আজ জামাতে ঈদের নামাজ আদায় করবেন। ধনী-গরিব, বড়-ছোট সবাই এককাতারে দাঁড়িয়ে ঈদের নামাজ আদায় করবে।

রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশে এরই মধ্যে সরকারি-বেসরকারি উদ্যোগে ঈদের জামাতের প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে।

রাজধানীর সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণস্থ জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে ঈদের নামাজের সার্বিক প্রস্তুতি গ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। শান্তিপূর্ণ পরিবেশে সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে নামাজ আদায়ে ঢাকা মহানগর পুলিশের পক্ষ থেকে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে ।

র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) ও পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর বিপুল সংখ্যক সদস্য মুসল্লিদের নিরাপত্তায় নিয়েজিত থাকবেন।

আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে রাজধানীতে ঈদের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল সাড়ে ৮টায় জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে। এতে ইমামতি করবেন বায়তুল মুকাররম জাতীয় মসজিদের জ্যেষ্ঠ পেশ ইমাম হাফেজ মাওলানা মুহাম্মদ মিজানুর রহমান। বিকল্প ইমাম হিসেবে উপস্থিত থাকবেন শায়খুল হাদিস মাওলানা সৈয়দ ওয়াহীদুয্যামান।

রাষ্ট্রপতি, বিচারপতি, মন্ত্রিপরিষদ সদস্য, ঢাকায় নিয়োজিত মুসলিম বিশ্বের কূটনীতিক জাতীয় ঈদগাহে ঈদের নামাজ আদায় করবেন। জাতীয় ঈদগাহে নারীদের জন্য আলাদা নামাজ আদায়ের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ব্যবস্থাপনায় জাতীয় ঈদগাহে প্রধান জামাত অনুষ্ঠানের সব প্রস্তুতি এরই মধ্যে সম্পন্ন করা হয়েছে। ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র সাঈদ খোকন জাতীয় ঈদগাহের সার্বিক প্রস্তুতি সরেজমিনে পর্যবেক্ষণ করেন। এ সময় তিনি বলেন, জাতীয় ঈদগাহের প্রধান জামাতে নামাজ আদায়ে মুসল্লিদের জন্য ডিএসসিসি সব ধরনের সুযোগ-সুবিধার ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। তবে বাড়তি সর্তকতা হিসেবে এবার জাতীয় ঈদগাহে বজ্রনিরোধক ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

ঈদের প্রধান জামাতের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে র‌্যাব ও পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা রোববার থেকেই সার্বক্ষণিক নজরদারি বজায় রেখেছেন। সাদা পোশাকে র‌্যাব এবং পুলিশ সদস্যরাও তৎপর রয়েছেন।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া জাতীয় ঈদগাহ মাঠ পরিদর্শনকালে সাংবাদিকদের জানান, সার্বিক নিরাপত্তা বিধানে রাজধানীর জাতীয় ঈদগাহ ও জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমে জায়নামাজ ছাড়া অন্য কিছু নিয়ে মুসল্লিদের প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হবে না বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

রাজধানীর প্রায় ৫০০ স্থানে ছোট-বড় ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে। যেসব জায়গায় ঈদ জামাত হবে, সেসব স্থানে পুলিশের পক্ষ থেকে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। সব স্থানেই পোশাক পরা ও সাদা পোশাকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা উপস্থিত থাকবেন বলে ডিএমপি কমিশনার জানিয়েছোন।

এদিকে জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমে এবারও পাঁচটি ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে। প্রথম জামাত হবে সকাল ৭টায়। এরপরে পর পর আরো চারটি জামাত হবে যথাক্রমে ৮টা, ৯টা, ১০টা ও সকাল পৌনে ১১টায়। বায়তুল মোকাররমের প্রথম জামাতে ইমামতি করবেন মসজিদের পেশ ইমাম মুফতি মুহিবুল্লাহিল বাকী নদভী, দ্বিতীয়টিতে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মুহাদ্দিস মাওলানা ওয়ালিয়ুর রহমান খান, তৃতীয়টিতে জাতীয় মসজিদের পেশ ইমাম মাওলানা মহিউদ্দিন কাশেম, চতুর্থটিতে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের ইমাম প্রশিক্ষণ একাডেমির ধর্মীয় প্রশিক্ষক মাওলানা জাকির হোসেন এবং পঞ্চম ও সর্বশেষ জামাতে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মুফতি হাফেজ মাওলানা মোহাম্মদ আবদুল্লাহ ইমামতি করবেন।

ইসলামিক ফাউন্ডেশন সূত্রে জানা গেছে, আবহাওয়া প্রতিকূল থাকলে বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে সকাল ৯টায় অনুষ্ঠিতব্য ঈদ জামাত দেশের প্রধান ঈদ জামাত হিসেবে গণ্য হবে।

বাংলাদেশ জাতীয় সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজায় সকাল ৮টায় ঈদের জামাতের আয়োজন করা হয়েছে। মন্ত্রী পরিষদের সদস্য, জাতীয় সংসদের হুইপ, সংসদ সদস্য ও সংসদ সচিবালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ এলাকার মুসল্লিরা এই জামাতে অংশ নেবেন।

ঢাকা দক্ষিণ ও উত্তর সিটি করপোরেশনের তত্ত্বাবধানে উভয় করপোরেশনের প্রতিটি ওয়ার্ডের মসজিদ, মাঠ ও ঈদগাহ মিলিয়ে মোট ৪০৮টি ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ডিএসসিসির ৫৭টি ওয়ার্ডের প্রত্যেকটিতে চারটি করে ২২৮টি স্থানে ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে।

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের সমাজকল্যাণ কর্মকর্তা এনায়েত হোসেন জানান, উত্তর সিটি করপোরেশনের ৩৬টি ওয়ার্ডের প্রত্যেকটিতে পাঁচটি করে মোট ১৮০টি ঈদ জামাতের আয়োজন করা হয়েছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় মসজিদ মসজিদুল জামিয়ায় ঈদের দুটি জামাত অনুষ্ঠিত হবে। সেখানে ঈদের প্রথম জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল ৮টায় এবং দ্বিতীয় জামাত হবে সকাল ৯টায়। প্রথম জামাতে ইমামতি করবেন মসজিদের জ্যেষ্ঠ ইমাম খতিব ড. সৈয়দ মুহাম্মদ এমদাদ উদ্দীন এবং দ্বিতীয় জামাতে ইমামতি করবেন মসজিদের ইমাম খতিব হাফেজ নাজীর মাহমুদ।

প্রতি বছরের মতো এবারও কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়ায় দেশের সর্ববৃহৎ ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে। এরই মধ্যে সেখানে ঈদ জামাতের সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। গত বছর ঈদুল ফিতরে জঙ্গি হামলার পরও কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়ায় দেশের সবচেয়ে বড় ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছিল।

পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়ে রোববার পৃথক বাণী দিয়েছেন।

এদিকে ঈদ উপলক্ষ্যে তিন দিনের সরকারি ছুটি রোববার থেকে শুরু হয়েছে। অপরদিকে ঈদের দিন সরকারি, আধা সরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানগুলোর ভবনে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হবে।

এ উপলক্ষে বনানীর ঢাকাগেট থেকে বঙ্গভবন পর্যন্ত প্রধান সড়ক এবং সড়ক দ্বীপগুলোয় জাতীয় পতাকা এবং বাংলা ও আরবিতে ঈদ মোবারক লেখা ব্যানার ও ফেস্টুন দিয়ে সাজানোর পাশাপাশি গুরুত্বপূর্ণ সরকারি ভবন আলোকসজ্জায় সজ্জিত করা হয়েছে।

বাংলাদেশ বেতার ও বাংলাদেশ টেলিভিশন ঈদ উপলক্ষে বিশেষ অনুষ্ঠানমালা সম্প্রচারের ব্যবস্থা নিয়েছে। বেসরকারি টিভি চ্যানেলগুলো ঈদ উপলক্ষে টানা সাতদিন বিশেষ অনুষ্ঠানমালা সম্প্রচারের ঘোষণা দিয়েছে।

এ ছাড়া ঈদ উপলক্ষে বিভিন্ন পত্র-পত্রিকা বিশেষ সংখ্যা প্রকাশ করেছে।

ঈদের দিন দেশের বিভিন্ন হাসপাতাল, কারাগার, সরকারি শিশুসদন, ছোটমনি নিবাস, সামাজিক প্রতিবন্ধী কেন্দ্র, আশ্রয়কেন্দ্র, ভবঘুরে কল্যাণ কেন্দ্র ও দুস্থ কল্যাণ কেন্দ্রে উন্নতমানের খাবার পরিবেশন করা হবে।

এ ছাড়া ঈদের জামাত শেষে ঢাকা মহানগরীর বিভিন্ন স্থানে রাষ্ট্রীয়নীতির সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ চলচ্চিত্র প্রদর্শন করা হবে। সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের বিনা টিকেটে উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের আওতাধীন সব শিশুপার্কে প্রবেশের সুযোগ এবং নগরীজুড়ে বিনোদন ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

বিভাগীয় কমিশনার, জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বা স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানগুলো জাতীয় কর্মসূচি ও নিজ নিজ কর্মসূচির আলোকে ঈদুল ফিতর উদযাপন করবেন। বিদেশে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাসসমূহে যথাযথ মর্যাদায় সরকারি কর্মসূচির আলোকে ঈদুল ফিতর উদযাপিত হবে।

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *