April 24, 2018

এইমাত্র পাওয়া সংবাদ

শাহরাস্তি কেশরাঙ্গা গ্রামের একটি প্রতারনা চক্রের শিকার ইউনিয়ন যুবরীগনেতা কামাল হোসেন ও তার পরিবার বর্গ। মিথ্যা মামলা দিয়ে ৫ লক্ষ টাকা চাঁদা দাবি।

trciks20160812084520নিজস্ব প্রতিবেদন ঃ- চাঁদপুর জেলার শাহরাস্তি উপজেলার কেশরাঙ্গা গ্রামের গ্রাম্য  একে অপরের বিরোধ রাজনৈতিক ভাবে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য থানা সুচীপাড়া দক্ষিণ ইউনিয়নের যুবলীগএ র যুগ্ম আহবায়ক মোঃ কামাল পিতাঃ মৃত রমজান আলী, সাং-কেশরাঙ্গা, উপজেলা-শাহরাস্তি, জেলা-চাঁদপুর কে ব্যাপক হয়রানি করছেন কেশরাঙ্গা গ্রামের একশ্রেণী গ্রামের প্রতারক ও টাউটরা। এদের অন্যতম আব্দুল মতিন অভিযোগে জানা যায় থানা রাগৈই গ্রামের মোঃ মফিজজুল ইসলাম সাথে যুবলীগ নেতা কামালের আত্মীয় বটে। সেই সুদাবে রাগৈই গ্রামের বিরোধ কেশরাঙ্গা গ্রামে আনেন আব্দুল মতিন। এ বিষয় মোঃ রফিকুল ইসলাম, পিতা-মৃত আব্দুল সাত্তর, সাং- রাগৈই, শাহরাস্তি, চাঁদপুর, তিনি বাদি হইয়া চাঁদপুর ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে ১টি মামলা করেন , যার নাম্বা-১৩১/২০১৬, ধারা-৪২০,৪০৬,১০৯,৩৪ এই মামলার সাথে কামাল ও তার আত্মিীয় স্বজনরা জড়িত নয়। এলাকার শত্র“তার জের ধরে আব্দুল মতিনের সহযোগিতায় কামাল ও তার ভাই লিটনের বিরুদ্ধে এই মামলাটি দায়ের করা হয়। মামলায় উল্লেখ রয়েছে ১২-০৪-২০১৬ তারিখে ৩টি ননজুডিশিলাল ষ্টাম্পে ১টি অঙ্গিকার নামা হয় কিন্তু ঐ চুক্তিপত্রের সাথে কামাল ও তার ভাই লিটন ও অন্যান্যদের স্বাক্ষর নাই।  মফিজুল ইসলামের পুত্র কাতার গিয়েছে আবার তিনি ফিরে আসছেন। এটি তার একান্ত ব্যাক্তিগত বিষয়। কাতারের নিয়ম অনুযায়ী মফিজের পুত্র বাংলাদেশে আসেন আসার পর আব্দুল মতিন কামল গংদেরকে বিরুদ্ধে এই মিথ্যা মামলা দায়ের করছেন বলে কামাল পরিবার জানায়।  আব্দুল মতিন জগনাথ কলেজে পিয়নের কর্মরত ছিলেন। বর্তমানে অবসর নিয়ে এলাকায় টাউট বাটপারি আর বিচারের নামে ব্যবসা করছেন বলে কামাল জানায়। মামলাটি আদালতথেকে তদন্তের জন্য আসে শাহরাস্তি মডেল থানায় প্রেরন হয়। এই মিথ্যা মামলার কামলদেরকে জড়ানোর জন্য উঠেপড়ে লেগেছে একটি চক্র মফিজ ও তার গড ফাদার আব্দুল মতিন গংরা কামাল ও তার আত্মীয় স্বজনের কাছে ৫ লক্ষ টাকা দাবি করেন। টাকা দিলে মামলা থেকে মুক্ত করবেন কামল পরিবারকে।  এ বিষয় যুবলীগ নেতা কামালের সথে যোগাযোগ করলে এই চাঁদাবাজ সন্ত্রসীদের প্রতারনা শিকার আমার গোটা পরিবারটি। তিনি এ বিষয়ে যুবলীগ নেতা কামাল সচিব স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে একটি অভিযোগ করেন এই মিথ্যা মামলাথেকে অব্যহতি পাওয়ার জন্য।    

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *