June 22, 2018

এইমাত্র পাওয়া সংবাদ

৭১’র চেতনা বাস্তবায়ন পরিষদ স্মারক সম্মাননা- ২০১৬ পেলেন লালমনিরহাট জেলা জাদুঘরের প্রতিষ্ঠাতা ড. মোঃ আশরাফুজ্জামান মন্ডল

new-imageমুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক কর্মকান্ডে অসামান্য অবদানের জন্য “৭১’র চেতনা বাস্তবায়ন পরিষদ স্মারক সম্মাননা- ২০১৬” পেলেন লালমনিরহাট জেলা জাদুঘরের প্রতিষ্ঠাতা ড. মোঃ আশরাফুজ্জামান মন্ডল। ৭১’র চেতনা বাস্তবায়ন পরিষদ কর্তৃক ২৭ নভেম্বর রবিবার সন্ধ্যা ৬ টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে তাকে এ সম্মাননা প্রদান করা হয়।
সংগঠনের প্রধান পৃষ্ঠপোষক প্রফেসর ডা: মাহবুব হোসেন মেহেদী এর সভাপতিত্বে আয়োজিত “৪র্থ প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষ্যে গুনিজন সম্মাননা ও সাম্প্রদায়িক অপতৎপরতা প্রেক্ষিত আজকের বাংলাদেশ” শীর্ষক অনুষ্ঠানে তার হাতে সম্মাননার ক্রেস্ট তুলে দেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী বাবু নারায়ণ চন্দ্র চন্দ এম.পি।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বঙ্গবন্ধু গবেষণা পরিষদের কেন্দ্রীয় সভাপতি লায়ন গনি মিয়া বাবুল, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ) এর সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হক প্রধান এম.পি, মাদার তেরেসা মেমোরিয়াল সোসাইটি এর যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কাজী রবিউল হক সহ অন্যান্য। অনুষ্ঠানের সঞ্চালক ছিলেন ৭১’র চেতনা বাস্তবায়ন পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি শেখ ইকবাল হাসান স্বপন।
উল্লেখ্য যে, ইতিহাস-ঐতিহ্য-সংস্কৃতির স্মৃতি রক্ষা, গবেষণা ও দেশবাসীর হাতে তা গ্রন্থাকারে তুলে দেয়ার লক্ষ্যে তিনি ২০০৩ সালে লালমনিরহাট জেলা জাদুঘর প্রতিষ্ঠা করেন। ২০০৭ সালে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে সমুন্নত রাখতে ও বর্তমান প্রজন্মকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উজ্জ্বীবিত করতে রংপুর অঞ্চলের লালমনিরহাট জেলায় মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক ভিডিওচিত্র ও আলোকচিত্র প্রদর্শনী সহ বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনার যে উদ্যোগ তিনি গ্রহণ করেছিলেন, তার ধারাবাহিকতা আজও রক্ষা করে চলেছেন। স্বাধীনতার দীর্ঘ ৩৬ বছর পর ২০০৭ সালের ডিসেম্বর মাসে লালমনিরহাট জেলায় বেসরকারী উদ্যোগে তিনিই প্রথম মুক্তিযুদ্ধের ভিডিও চিত্র প্রদর্শন করেন। তিনি ২০১০ সালের ১৫ জানুয়ারি লালমনিরহাট সার্কিট হাউসে অনুষ্ঠিত সাম্প্রদায়িকতা বিরোধী সম্মিলিত আন্দোলনের প্রথম মতবিনিময় সভার আহ্বায়ক ছিলেন। এ সভায় উপস্থিত ছিলেন ঢাকাস্থ মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের ট্রাস্টি তারেক আলী। বিজয় দিবস উদযাপনের ৪০ বছর পূর্তি (১৯৭২-২০১২) উপলক্ষ্যে ২০১২ সালে বাংলাদেশে একমাত্র তিনিই ‘‘প্রথম বিজয় দিবস স্মারক গ্রন্থ-১৯৭২: বাংলাদেশ’’ ডকুমেন্ট এর উন্মুক্ত প্রদর্শনীর আয়োজন করেন। বঙ্গবন্ধুর আদর্শের অন্যতম ধারক, মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ও বাংলার বাণী’র সম্পাদক শহীদ শেখ ফজলুল হক মণি কর্তৃক ১৯৭২ সালে সম্পাদিত ‘বাংলাদেশে গণহত্যা’ ডকুমেন্টটি তিনি ২০১৫ সালে সঙ্কলন গ্রন্থাকারে প্রকাশ করেন। লালমনিরহাট জেলার ইতিহাস গ্রন্থ সহ তার প্রকাশনার সংখ্যা মোট ৩৯ টি।
ড. মোঃ আশরাফুজ্জামান মন্ডল বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদানের জন্য ইতিপূর্বে ১৪১১ বঙ্গাব্দে রোদ্দুর সম্মাননা, ২০০৬ সালে হামার লালমনি প্রদর্শনী পুরস্কার, ২০০৭ সালে প্রথমআলো-গ্রামীণফোন সম্মাননা-২০০৬ ও লালমনিরহাট রতœ সম্মাননা, ২০০৮ সালে লালমনিরহাট পৌরসভা সম্মাননা, ২০১২ সালে আরশীনগর গুণীজন সম্মাননা, ২০১৪ সালে কবিসংসদ বাংলাদেশ সম্মাননা, ২০১৫ সালে স্মৃতি’৭১ স্বর্ণপদক ও কবি জসীম উদদীন সাহিত্য পুরস্কার এবং ২০১৬ সালে বঙ্গবন্ধু গবেষণা পরিষদ স্মারক সম্মাননা পেয়েছেন।
দেশ প্রেমের চেতনায় উজ্জ্বীবিত রংপুর অঞ্চলের এ কৃতিসন্তান নানা প্রতিবন্ধকতা পেরিয়ে আপন গতিতে তার কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন।

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *