October 19, 2018

ক্রিকেটার শাহাদাত দম্পতির মামলার রায় ৬ নভেম্বর

shahadat-2ক্রিকেটার কাজী শাহাদাত হোসেন রাজীব ও তার স্ত্রী জেসমিন জাহান দম্পতির বিরুদ্ধে দায়ের করা শিশু গৃহকর্মী নির্যাতনের মামলার রায় ৬ নভেম্বর।

সোমবার (৩১ আক্টোবর) ঢাকার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৫-এর বিচারক তানজিলা ইসমাইল এ দিন ধার্য করেন।

রাষ্ট্র ও আসামী পক্ষের আইনজীবীদের যুক্তি তর্ক শেষে বিজ্ঞ বিচারক রায়ের দিন ঘোষণা করেন।

ঘটনার বিবরণে জানা যায়, কাজী আসামী শাহাদত হোসেন রাজিব ও তার স্ত্রী জেসমিন জাহান নিত্য তাদের বাড়ির কাজের মেয়ে মাহফুজা আক্তার হ্যাপিকে নির্যাতনের করেন।

এ ঘটনায় মানবাধিকার বিষয়ক পত্রিকা ‘পার্লামেন্ট ওয়াসে’র সম্পাদক খন্দকার মোজাম্মেল হক বাদী হয়ে মীরপুর থানায় মামলা (নম্বর ১৭/৯/১৫) করেন।

এ মামলায় (নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রইবুন্যাল আদালত এর নম্বর ৩৯/১৬) ৭ জন সাক্ষি আদালতে সাক্ষ্য দেন।

মামলার ব্যাপারে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুন্যাল কোর্টের স্পেশাল পাবলিক প্রসিকিউটার আলী আজগর স্বপন বলেন, আইনে আছে যদি একজন সাক্ষিও আদালতে প্রমাণ করতে পারেন যে তারা দোষ করেছে এবং আদালতের কাছে তায় প্রতিয়মাণ হয়, তাবে আদালত শাস্তি দিতে পারেন।

তিনি আরও বলেন, এ মামলার সাক্ষি ডাক্তার আদালতে বলেছেন ভিকটিমের শরীরে আঘাত ও ক্ষত ছিল। ভিকটিম আমামীদের হেফাজতে থাকা অবস্থাতেই নির্যাতিত হয়।

মামলায় ম্যাজিস্ট্রেট সাক্ষিতে আদালত বলেছেন, ভিকটিম নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ২২ ধারায় তার সাবলিল ভাষায় দেওয়া জবানবন্দি পড়ে জেনে শুনে তাতে সাক্ষর করেছে ভিকটিম।

রাজধানী মানবাধিকার সংস্থার যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ নাজমুল হুদা আদালতে এবং সাংবাদিকদের বলেন, গত ২৯/৪/২০১৬ তারিখে দৈনিক ইত্তেফাক ও প্রথম আলোসহ বিভিন্ন সংবাদ ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার রাজিব জাতির কাছে ক্ষমা চেয়ে বক্তব্য দিয়েছেন এতেই প্রমাণ হয় তারা দোষ করেছেন। এ মামলার সর্বোচ্চ শাস্তি যাবজ্জীবন কারাদন্ড। আমরা আসামীদের বিরুদ্ধে ওই শাস্তিই চাই।

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *