June 19, 2019

ভূয়া দলিল লেখক চিতোষী সাব-রেজিস্টার অফিসে জাল স্ট্যাম্প সরবরাহকারী শাহরাস্তি ভূমি অফিসের দালাল মনির হোসেনের বিরুদ্ধে গ্রেপতারী পরোয়ানা জারী, মামলা থেকে বাচার জন্য বড় ভাইদের আর্শিবাদ খুজছে।

5383-jaal_takaমোঃ জাহাঙ্গীর আলমঃ- চাঁদপুর জেলার শাহরাস্থি উপজেলার সাংহাই গ্রামে মৃত জোনাব আলীর পুত্র মুনির হোসেন একজন ভণ্ড প্রতারক হিসাবে পরিচিত। তিনি ভুয়া দলিল লেখক পরিচয় দিয়ে শাহরাস্থি উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়ন তফসিল অফিসে নামজারী করার কথা বলিয়া প্রতারনা করে ও অর্থ নিয়া থাকে। গত কিছুদিন আগে হায়কামতা গ্রামের এক ব্যাক্তির কাছ থেকে দলিল বা নাম জারির কথা বলিয়া অর্থ নিয়ে পালাইয়া থাকে। পরবর্তিতে ধরা পরিলে এই ব্যাক্তিদের বিরুদ্ধে অপহরনের মামলা করেন। প্রতারক মুনির হাজীগঞ্জ বাজারে এক হোটেলে বসা অবস্থায় দেখতে পাইয়া লোকজন জানাজানি হইলে হাজীগঞ্জ পুলিশ তাকে ধরে শাহরাস্থি থানায় প্রেরন করে। তার প্রতারনার গোমর ফাঁস হয়ে যায়। এইভাবে গোটা এলাকায় নিরিহ জনগণকে প্রতারিত করে আসছে। অবশেষে গত ০৩/১০/১৬ ইং তারিখে সংহাই সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় বিদ্যুৎ সাই হওয়ার জন্য উঠেপরে হয়ে থাকেন। যদি এম পির মনোনিত হতে পারেন তবে এলাকায় প্রতারনা করিতে পারিবে। শাহরাস্তি ভূমি অফিসে সারাদিনই করেছে দালালি। গত ১৭ তারিখে তার বিরুদ্ধে জাতীয় প্রেসক্লাবে এক মানব বন্ধন হয়। প্রতারক মুনির এর শাহরাস্তির দাবিতে। এলাকার মাননীয় সংসদ সদস্য মেজর অবঃ রফিকুল ইসলাম বীর উত্তমের স্বাক্ষর জালীয়াতি করিয়া নিজে বিদ্যুৎ সাই হয়। অভিযোগে জানা যায় স্থানীয় সুচিপাড়া দক্ষিন ইউনিয়নের আওয়ামীলীগ এর সভাপতি গোলাম মোস্থাফা, ৭ নং ওয়াডের সভাপতি মনসুর সংহাই গ্রামের আওয়ামীলীগ নেতা জাহাঙ্গীর আলমএর নাম মনোনিত করে এম পি মহোদয়ের কাছে পাঠান। মুনির হোসেন কতিপয় বড় ভাইয়ের সহায়তায় এম পির স্বাক্ষর জালিয়াতি করে নিজে সমাজ পতি হয়ে যায়। এ বিষয় এলাকায় তিব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ চলছে। বর্তমানে প্রতারক মুনির গা ঢাকা দিয়ে এলাকায় পালিয়ে বেড়াচ্ছে। এছাড়াও তার বিরুদ্ধে প্রতারনার জালিয়াতির অভিযোগ রহিয়াছে । শুধু শাহরাস্থি চাঁদপুর নয় ঢাকাতে আসিয়াও প্রতারনা করে গত ১৬/০৯/২০১৬ ইং তারিখে যানবান অধিদপ্তরে পুরাতন গাড়ি দেওয়ার কথাবলিয়া ৪,৪২,০০০/- টাকা নেয়। টাকা বা গাড়ি না দেওযায় তার বিরুদ্ধে ১৮/১০/২০১৬ ইং তারিখে ঢাকা সি এম এম আদালতে দণ্ডবিধি ৪০৬/৫০৬ একটি সি আর মামলা দায়ের করেন। বিজ্ঞ আদালত বাদির বক্তব্য শুণে ভণ্ড প্রতারক মুনির হোসেনের বিরুদ্ধে গ্রেপতারি প্ররোয়ানা জারী করেন। এ সংবাদ মুনির জানতে পেরে কতিপয় বড় ভাইয়ের আশির্বাদ নেওয়ার জন্য ঘুরে বেড়াচ্ছে। ভূমি অফিসের নায়েব এবং সহকারী কমিশনার ভূমির নাম ভাঙায়া ভূমি জরিপ করে দিবে বলিয়া অর্থ নিয়ে যাচ্ছে। তিনি একজন ভন্ড প্রতারক। তাহার প্রতারনার সিংহভাগ শাহরাস্তি উপজেলার কতিপয় বড় ভাইকে দিয়ে থাকে তারা নাকি তাকে আশ্রয় প্রশ্রয় দেয়। এছাড়াও চিতোষী সাব-রেজিস্ট্রার অফিসে জাল স্ট্যাম্প দিয়ে অনেক দলিল লেখেন বলে সংবাদ পাওয়া গেছে।  তিনি কতিপয় দলিল লেখকের লাইসেন্স ব্যবহার করিয়া নিজে দলিল লেখিয়া সাব রেজিস্টেশন এর কাছে নিয়ে যায় বলে জানা যায়। তাহার লেখা যে সব দলিল হয়েছে। সব জাল স্ট্যাম্প।

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *