August 17, 2018

এইমাত্র পাওয়া সংবাদ

শাহরাস্তি বঙ্গবন্ধুর ছবি ভাংচুর ! জুয়া ও জাল টাকার ছড়াছড়ি পুলিশ মামলা নিচ্ছে না

শাহরাস্তি বঙ্গবন্ধুর ছবি ভাংচুর ! জুয়া ও জাল টাকার ছড়াছড়ি পুলিশ মামলা নিচ্ছে না
উপজেলা: শাহরাস্তি সংহাই বঙ্গবন্ধুর ছবি ভাংচুরকারী এলাকার মাদক সম্ব্রাট লিটন, নসু ও তার ভাই  রাজারবাঁগ পুলিশ লাইনে টেলিকম শাখার এ এস আই মুকবুুল হোসেনের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা এখনো হচ্ছে না। ভাংচুরকারীরা এলাকায় ঘুড়ে বেড়াচ্ছে মুকবুল হোসেন সহ বিগত ০৭/০৫/২০১৬ইং তারিখে আনুমানিক সন্ধা ৭ ঘটিকায় সময় তাঁতীলীগ দক্ষিনের সাবেক সভাপতি ও কেন্দ্রীয় আহ্বায়ক কমিটির সদস্য ব্যবসায়ী কার্যালয় সংহাই মধ্যপাড়া অজ্ঞাত নামা ১০/১৫ জনকে নিয়ে অফিসে হামলা করে এবং অফিসে আসবার পত্র ভাংচুর ও টাকা পয়শা নেন ও জাতীর জনক বঙ্গবন্ধুর ছবি ভাংচুর করেন মুকবুল মাদ্রাসার ছাত্র ছিলেন ঐ সময় ইউনিয়ন নেতৃত্ব তিনি দিতেন। আওয়ামীলীগের বিরুদ্ধে মিছিল করেছেন। তৎকালীন ৪ দলীয় জোট থাকাকালীন জামাতের সহযোগীতায় পুলিশ কনষ্টবলে চাকুরি নেন কিন্তু পদ উন্নত হয়ে তিনি এখন এ এস আই রাজারবাঁগ পুলিশ লাইনে থাকিয়া এলাকায় জামাত শিবিরের সিকিমি করছেন তার ভাই লিটন এলাকায় মাদক ব্যবসায়ী হিসেবে পরিচিত, নসু সুদের ব্যবসায় জড়িত শুভনীর নামে একটি আত্মপ্রকাশ করেছেন মুকবুল এই সংগঠনের মাধ্যমে শত শত সদস্য করে কোটি কোটি টাকা সুদে এলাকায় দিচ্ছেন এই সংগঠনের কার্যালয় ফেরুয়া বাজারে শুভনীরের একাধীক সদস্য জামাত শিবিরে রয়েছে এরা এলাকাতে শিবিরের ঘাটি করার জন্য নসু এই সংগঠনের অর্থ দিচ্ছেন জামাত শিবির। এলাকার আওয়ামীলীগের নাম ভাঙ্গাচ্ছে। নসু ও লিটন বঙ্গবন্ধুর ছবি ভাংচুরের পুলিশ তাদেরকে গ্রেফতার করছে না বলে জানা যায় অথচ ভিআইপির মতো ঘুরে বেড়াচ্ছে। এ বিষয়ে জেলা প্রশাসক চাঁদপুর কার্যালয় অভিযোগ  করেন  আজিজুল হক পাটোয়ারী। থানা অভিযোগ থাকা স্বত্তেও তাহাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্তা নেওয়া হচ্ছে না। অথছ তারা গোটা এলাকায় মাদক ব্যবসা করছে আর বহিরাগতদের নিয়ে সংহাই পেরুয়া রাত্রে ১০ টা থেকে ৩ টা পর্যন্ত জুয়ার আসর  বসে ও এলাকায় চুরি ডাকাতি হয়। জুয়ার দলপতি নসু আর মাদকের দলপতি লিটন আর তাহাদের সহায়তা করছেন তাহারই ভাই পুলিশ মকবুল। ২৯/০৬/২০১৬ ইং তারিখ সাংহাই দক্ষিন পাড়ায় দশ লক্ষ টাকার জুয়ার আসর বসান। এলাকাবাসী সংবাদ পেলে জুযারী নসু ও তার দল-বল নিয়ে পালিয়ে যায়। নসু নিজ বাড়িতে না থাকিয়া পাশ্ববর্তি আয়নতলিতে ভাড়া থাকে। রাত্রে ১০টার পর এলাকা এসে এসব অপকর্ম করেন। অভিযোগে জানাপ যায় এরা জালটাকা এলাকায় নিয়ে রমরমা ব্যবসা করছেন এদের সাথে জামাত-শিবির সংযোগ রয়েছে। অথছ শাহারাস্তি পুলিশ তাদের গ্রেফতার করতে অক্ষম কেন। চলবে

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *