September 22, 2018

এইমাত্র পাওয়া সংবাদ

স্বাধীনতার ৪৪ বছরের ভাবনা

88বাংলাদেশ রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা এবং স্বাধীনতা ও বিজয়ের ৪৪ বছর চলছে। আমাদের এই ভূখন্ডের ব্রাত্য, হতদরিদ্র, হাঁড় জিরজিরে, অদম্য, কৃষক সন্তান, ভূঁইমালী, মালো, বাগদী এবং ভূমিপুত্রেরা হাজার বছর ধরে স্বপ্ন দেখেছে স্বাধীনতার অপ্রাপনীয় রক্তগোলাপের। সংগ্রাম করেছে মুক্ত স্বাধীনত অবধারিত জীবনের জন্য। অল্পে সন্তুষ্ট এই মানুষেরা একটু সুখ, স্বস্তির ও শান্তির জন্য বীর বিক্রয়ে লড়াই করেছে ভিনদেশী লুটেরা, সামন্ত প্রভু, ঔপনিবেশিক শাসক ও নিজ দেশের অত্যাচারী শাসক-শোষকের বিরুদ্ধে। সন্ন্যাসীরা, পাগলপন্থীরা, সাঁওতালিরা, হাজংয়েরা, কৈবর্ত্যরো এবং নিঃস্ব-রিক্ত কৃষকেরা লড়াই করেছে দেশের নানা প্রান্তিক অঞ্চলে বনে-জঙ্গলে কখনওবা পাবনায়, নারকেলডাঙ্গায়। এরা জান দিয়েছে, চিৎকার করে বলেছে বংশপরম্পরায় আমাদের শিরা-উপশিরায় বয়ে চলেছে স্বাধীনতার আকাড়ায় উচ্ছল রক্তপ্রবাহ। শত্রুপরে প্রবল আক্রমণে বিধ্বস্থ হয়েও উপরে তুলে ধরেছে স্বাধীনতার পতাকা। শীতুলাহ, টিপু পাগলা, তিতুমীর, সূর্য সেন, প্রীতিলতা অকুতোভয়ে স্বাধীনতার জন্যে লড়াই করে প্রাণ দিয়েছেন, শহীদ হয়েছে কিন্তু হাতের পতাকা ছাড়েন নি। এসব অসংখ্য সংগ্রামের ঐতিহ্যের সমন্বয় সাধন করেই ‘৫২-র ভাষা আন্দোল, ‘৫৪-র যুক্তফ্রন্টের নির্বাচন পরবর্তীকালে সামরিক শাসনবিরোধী সংগ্রাম, শিক্ষা আন্দোলন, স্বায়ত্তশাসন, স্বাধিকার আন্দোলন এবং সর্বশেষে ‘৬৯-র গণআন্দোলনের ধারাবাহিকতায় অদ্ভুত বিপ্লবী জাতিসত্তার শ্লোগান ‘জয় বাংলা’কে বীজমন্ত্র হিসেবে কণ্ঠে ধারণ করে বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে শেষ পর্যন্ত ১৯৭১-এ অর্জিত হয়েছে বাংলাদেশের অমূল্য স্বাধীনতা। স্বপ্ন সফল হয়েছে বাংলার হাজার বছরের স্বাধীনতা-সংগ্রামী বীর-বিপ্লবীদের। বাংলাদেশের স্বাধীনতা অর্জনের এই ইতিহাস অভূতপূর্ব গৌরবমন্ডিত। অঙ্গীকারযুক্ত হয়ে কণ্ঠে স্বাধীনতার বাণীকে যদি বংশপরম্পরায় ধারণ করতে পারে তাহলে তারা তো বলতেই পারে- স্বাধীনতা, তোমাকে আসতেই হবে এবং শেষ পর্যন্ত নদী-নদী ঢেউয়ের মধ্য দিয়ে এসেছে এই স্বাধীনতা। লেখক- আবু ইউসুফ পাটোয়ারী, সম্পাদক ও প্রকাশক, গাডিয়ান বিডি নিউজ। সদস্য, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন, জাতীয় পেসক্লাব, ঢাকা।

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *